1. adnan210.net@gmail.com : Kanon Badsha : Kanon Badsha
  2. themesbazar@gmail.com : theam bazar : theam bazar
  3. khanmdmahadi29@gmail.com : Khan Md mahadi : Khan Md mahadi
  4. somoyexpressnews@gmail.com : নাঈম সজল : নাঈম সজল
  5. Kanonbd1@gmail.com : নিউজ ডেষ্ক : সময় এক্সপ্রেস নিউজ ডেস্ক
  6. raytahost@gmail.com : theam 2022 : theam 2022
সোমবার, ২৯ মে ২০২৩, ০৪:৫৯ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনামঃ
আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাকেরগঞ্জ বাসীর নির্ভরতার স্থান ইঞ্জিনিয়ার মহিউদ্দিন আহমেদ ঝন্টু বরিশাল নগরীর শীতলা খোলা এলাকায় (তুষারের)সন্ত্রাসী কর্মকান্ড থামছে না ?      প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকির প্রতিবাদে সেনবাগে সেচ্ছাসেবক লীগের মটর শোডাউন গৃহিণী থেকে নগরমাতা আওয়ামী লীগ রুখতে পারলেন না জাহাঙ্গীরকে- গাজীপুরের ‘নগরমাতা’ জায়েদা খাতুন মায়ের বিজয়ের পর যা বললেন জাহাঙ্গীর আলম গাজিপুর সিটি নির্বাচন-৪৫০ কেন্দ্রের ফলাফলে জায়েদা খাতুন ২০ হাজার ভোটে এগিয়ে গাজীপুর সিটি নির্বাচন-৪২৬ কেন্দ্রের ফলাফলে এগিয়ে টেবিল ঘড়ি গাজিপুরে নৌকার ভরাডূবির শঙ্কা তরুণ প্রজন্মের ফটোগ্রাফার নয়ন আহম্মেদ এর জন্মদিন আজ

মদের দোকানের সাইনবোর্ডে কিভাবে এলো প্রধানমন্ত্রীর ছবি?

সময় এক্সপ্রেস নিউজ ডেস্ক : গতকাল থেকে ‘’হাসিনার মদের দোকান” শিরোনামে বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনা ও সজীব ওয়াজেদ জয়ের ছবি সম্বলিত একটি মদের দোকানের সাইনবোর্ড এর ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। এই ছবিটির সত্যতা যাচাই এবং বিস্তারিত জানতে সময় এক্সপ্রেস নিউজ টিম অনুসন্ধানে নামে। আসুন দেখে নেয়া যাক অনুসন্ধানে মূলত কি পাওয়া গেল।

ভাইরাল তথ্যঃ

০৮/০৩/২০২২ তারিখে জাতীয়তাবাদের ডাক নামক পেইজ থেকে ‘হাসিনার মদের দোকান ক্যাপশনে ছবিটি পোষ্ট করা হয়।

ছবিটিতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, শেখ হাসিনা, সজীব ওয়াজেদ জয় ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের লোগো সম্বলিত গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত সরকারী মদের দোকান লেখা একটি সাইনবোর্ড দেখতে পাওয়া যায়। সেই ছবিতে ঠিকানা উল্লেখ করা হয় নালিতাবাড়ী রোড, হালুয়াঘাট, ময়মনসিংহ। এছাড়া মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, ঢাকা , বাংলাদেশ লেখাটিও উল্লেখ আছে।

Shakur Haque নামক আইডি থেকেও একই ক্যাপশনে ছবিটি শেয়ার করা হয়,

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী ওলামা বিভাগ নামক গ্রুপেও সংগ্রামই জীবন নামক আইডি থেকেও একই পোষ্ট শেয়ার করা হয়,

পাশাপাশি Riaz Media নামক পেজ থেকে ‘সমৃদ্ধির পথে আরো একধাপ এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ!’ নামক ক্যাপশনে ছবিটি শেয়ার করা হয়।

চেক ফ্যাক্ট অনুসন্ধানঃ

চেক  ফ্যাক্ট পুরো ঘটনাটি তথ্য উপাত্তের মাধ্যমে বিশ্লেষণ করে দেখার চেষ্টা করেছে। অনুসন্ধানের প্রথম ধাপে ছবিটির রিভার্স ইমেজ সার্চ করা হলে ছবিটির কোন মূল উৎস খুঁজে পাওয়া যায় নি। পরবর্তীতে গুগলে কি ওয়ার্ড সার্চ করলে ফেসবুকে রিফাত মির্জা নামক আইডি তে ছবিটি এডিট করা দাবী করে একটি পোষ্ট পাওয়া যায় যেখানে মূল ছবি চিহ্নিত করে আরেকটি ছবি আপলোড করা হয়। রিফাত মির্জার দাবীকৃত আসল ছবিটিতে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত সরকারী মদের দোকান লেখা একটি সাইনবোর্ড দেখতে পাওয়া যায় যেখানে ঠিকানা উল্লেখ করা হয় নালিতাবাড়ী রোড, হালুয়াঘাট, ময়মনসিংহ। এছাড়া মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, ঢাকা , বাংলাদেশ লেখাটিও সাইনবোর্ডে উল্লেখ আছে।

এছাড়া রিফাত মির্জার পোষ্টে Mdh Titu ও Robin Ahamed Raju নামক দুইটি আইডি থেকে মূল ছবিটি কমেন্ট করে। কমেন্টকৃত ছবিটি দুটিতে দেখা যায়, পুলিশের পোশাক পরিহিত একজন এবং তিনজন ব্যক্তির উপস্থিতিতে সাইনবোর্ডটি  রাখা আছে যেখানে সাইনবোর্ডটিতে কোন  ছবি বা লোগো নেই। অর্থাৎ সাইনবোর্ডটিতে  বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, শেখ হাসিনা, সজীব ওয়াজেদ জয় ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের লোগো খুঁজে পাওয়া যায় নি।

পরবর্তীতে ছবিটি সম্পর্কে আরো নিশ্চিত হওয়ার জন্য হালুয়াঘাট থানার ওসি মহোদয়ের সাথে টিম  সময় এক্সপ্রেস নিউজ যোগাযোগ করলে ওসি মহোদয় জানান, তারা সরেজমিনে সাইনবোর্ডটি পরিদর্শন করেছেন এবং নিশ্চিত করেন যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল সাইনবোর্ডের ছবিটি ফটোশপকৃত। তিনি আরো জানান যে , জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সজীব ওয়াজেদ জয়ের ছবি এডিটের মাধ্যমে যারা  মদের দোকানের সাইনবোর্ডে বিকৃতিভাবে উপস্থাপন করেছে তদন্ত সাপেক্ষে তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

                                  মূলছবি

মূলত বাংলাদেশ সরকার অনুমোদিত মদ বিক্রির দোকানগুলো তাদের স্থাপিত দোকানে সাইনবোর্ড ব্যবহার করে থাকে। নালিতাবাড়ী রোডে অবস্থিত মদের দোকানটির সাইনবোর্ডের ছবিটিকে অপপ্রচার বা অসৎ উদ্দেশ্যে কেউ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান, শেখ হাসিনা ও সজীব ওয়াজেদ জয়ের ছবি বসিয়ে ফটোশপের মাধ্যমে ফেসবুকে প্রচার করে। পরবর্তীতে ছবিটি বিভিন্ন গ্রুপ ও ব্যক্তিদের দ্বারা ভাইরাল হয়ে যায়। তাই উল্লেখিত তথ্য প্রমাণের ভিত্তিতে বলা যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ছবিটি মিথ্যা। তাই সত্য জানুন, তারপর প্রচার করুন।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2022 somoyexpress.news
Customized By BlogTheme