1. [email protected] : admins :
  2. [email protected] : Kanon Badsha : Kanon Badsha
  3. [email protected] : Nayeem Sajal : Nayeem Sajal
  4. [email protected] : News Editir : News Editir
রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ১১:৫৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম
কায়েস আরজু-শিরিন শিলা “গবেট” আজ থেকে সড়ক বন্ধ করে বিশৃঙ্খলা করলে কঠোর ব্যবস্থা: ডিএমপি প্রশ্নফাঁসকাণ্ডে ফেসে যাচ্ছেন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা, হারাতে পারেন চাকরি সালমান রাজের ‘বধুরে’ গানে হান্নান শাহ-এস কে মাহি সোনাইমুড়ী প্রেসক্লাবে সদস্যদের সাথে ঢাকার বার্তার চেয়ারম্যানের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হাসপাতালে ভর্তি অভিনেত্রী সেঁজুতি খন্দকার কুখ্যাত মাদক ব্যবসায়ী জাহাঙ্গীর আলম ও তার সহযোগী জাকির হোসেন’কে গ্রেফতার করেছে র‍্যাব-৩ অনুমতি ছাড়াই বিদেশে প্রদর্শিত হচ্ছে ‘তুফান’ ফ্রান্সে সম্মাননা পেলেন তারকা দম্পতি অনন্ত-বর্ষা বিএনপি-আ.লীগের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি আজ

শরীরে মুরগীর রক্ত মেখে মামলার চেষ্টা

  • আপডেট সময় রবিবার, ৪ ফেব্রুয়ারী, ২০২৪

মোঃ জামাল হোসেন, মাদারীপুর প্রতিনিধি: মুরগী কেটে সেই রক্ত নিজের মুখে মেখে অন্যকে মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসানোর জন্য আদালতে গেলে ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে ধরা পড়লেন জুলেখা আক্তার নামে এক নারী। এ ঘটনায় বিজ্ঞ আদালত তাৎক্ষনিকভাবে জুলেখাকে কারাদন্ড দিয়েছেন।
মামলার এজাহার থেকে প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে মাদারীপুর সদর উপজেলার খোয়াজপুর ইউনিয়নের খোয়াজপুর টেকেরহাট গ্রামের সোহেল বেপারীর স্ত্রী জুলেখা আক্তার প্রতিপক্ষ প্রতিবেশীকে মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসানোর জন্য গতমঙ্গলবার মাদারীপুর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদ এর আদালতে উপস্থিত হন। আদালতে জুলেখা মিথ্যা মামলার বিবরণ দিতে গিয়ে নিজেই ফেঁসে গেছেন। জুলেখা প্রতিপক্ষ মাসুদ বেপারীসহ চারজনকে ফাঁসানোর জন্য পেনাল কোডের ১৪৩/৩২৩/৩২৫/৩০৭/৩৫৪/৩৭৯/৩৮০/৫০৬/৩৪ ধারায় মাদারীপুর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মামুনুর রশিদ এর আদালতে মামলা দায়ের করার জন্য উপস্থিত হন। এ সময় মামলার বাদী মিথ্যা ঘটনা লিপিবদ্ধ করেন এবং রক্ত মাখা ছবি আদালতে দাখিল করেন। এ সময় মামলার বাদী জুলেখার কথা-বার্তা বিচারকের কাছে সন্দেহজনক মনে হলে বিচারক বাদীর কাছে হাসপাতালের চিকিৎসার কাগজপত্র দেখতে চান, বাদী হাসপাতালের কোন কাগজপত্র দেখাতে পারেননি। বিচারকের কাছে এক পর্যায়ে ঘটনা সাজানো মনে হলে তাকে দন্ড প্রদান করেন।
মাদারীপুর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের প্রশাসনিক কর্মকর্তা ( ভারপ্রাপ্ত ) মো. আল মামুন বলেন, জুলেখা আক্তার নামে এক নারী বিজ্ঞ চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মিথ্যা ঘটনা সাজিয়ে মামলা দায়ের করতে আসেন। বিজ্ঞ আদালতের বিচারকের কাছে মামলার ঘটনা সন্দেহজনক মনে হলে চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট স্যার ওই নারীকে দোষী সাব্যস্ত করে এক হাজার টাকা অর্থ দন্ড অনাদায়ে তিন দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ডে করেন। মামলার আদেশের পরে মামলার বাদী দোষস্বীকার করে বিজ্ঞ আদালতের কাছে ক্ষমা প্রার্থনার আবেদন করেন এবং আদালতের আদেশ অনুযায়ী জুলেখা সরকারি কোষাগারে এক হাজার টাকা জমা দেন। পরে আদালত তাকে মুক্তি প্রদান করেন।

শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
© All rights reserved © 2023 Somoyexpress.News
Theme Customized By BreakingNews